বিজ্ঞপ্তি:
"কুমিল্লা টাইমস টিভিতে" আপনার প্রতিষ্ঠান অথবা নির্বাচনী প্রচারনার জন্য এখনি যোগাযোগ করুন : ০১৬২২৩৮৮৫৪০ এই নম্বরে
শিরোনাম:
মুরাদনগরে ভূমি সেবা সপ্তাহের সমাপনী; শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সম্মাননা প্রদান ঢাকাস্থ মুরাদনগর ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সভাপতি আমিন ও সাধারণ সম্পাদক হাবিব শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় নার্গিস আফজালকে চিরো বিদায় ধর্ষণ মামলায় কুমিল্লা থেকে প্রিন্স মামুন গ্রেফতার ব্যবসায়ীকে তিন দিনের মধ্যে মেরে ফেলার হুমকি, নিরাপত্তা চেয়ে থানায় অভিযোগ অনিয়মের সংবাদ প্রকাশে সুফল পাচ্ছে এলাকাবাস কুমিল্লায় বিএনপির দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, গুলি-ককটেল বিস্ফোরণ বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসে কুমিল্লায় সম্মাননা পেলেন ৭ সংবাদকর্মী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৭জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল কুমিল্লায় তীব্র গরমে একই বিদ্যালয়ের ৭ শিক্ষার্থী অসুস্থ মুরাদনগরে নাগরিক ঐক্য পরিষদের প্রার্থী ঘোষনা মধ্যরাতে অগ্নিকান্ডে ভস্মীভূত ১৫ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মুরাদনগরে বিএনপির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মুরাদনগরে সড়কের সংস্কার কাজে অনিয়ম বিলুপ্তির পথে কুমিল্লার তাঁতে তৈরি আসল খাদি

মুরাদনগরের ১৩০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮৬৬ বার পড়া হয়েছে
মুরাদনগরের ১৩০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

সাজ্জাদ হোসেন শিমুলঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজারে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে কুমিল্লা জেলা পরিষদ।

এসময় জেলা পরিষদের ১ একর ৯৯ শতাক জায়গায় দখল করে থাকা ১৩০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়ে। মঙ্গলবার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে ওই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে জেলা পরিষদের নিযুক্ত শ্রমিক এবং বুলডুজার দিয়ে অবৈধ স্থাপনা ও সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভেঙ্গে দেয়া হয়। এ সময় অনেক দখলদার তাদের স্থাপনা স্ব-উদ্যোগে সরিয়ে নেন।

উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা কালে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত রিয়ার এডমিরাল আবু তাহের, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন, মুরাদনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অভিষেক দাশ, মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) নাহিদ আহম্মেদ, জেলা পরিষদের সদস্য ভিপি জাকির হোসেন, নজরুল ইসলামসহ আরো অনেকে।

উচ্ছেদকৃত স্থাপনার বাজার মূল্য প্রায় ৭০ থেকে ৮০ কোটি টাকা বলে জানান জেলা পরিষদের কর্মকর্তারা। অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত রাখার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান তারা।

এদিকে এই উচ্ছেদ অভিযানে আদালতের নিষেধাজ্ঞা এবং বৈধ মালিকানার কাগজ পত্র থাকা সত্ত্বেও অনেকের ব্যক্তি মালিকানাধীন স্থাপনা ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলেও ক্ষতিগ্রস্ত অনেকে অভিযোগ করেন।

তবে, বৈধ কাগজপত্র আছে এমন কারো স্থাপনা ভাঙ্গা হলে তাদের ক্ষতিপুরণ দেয়া হবে বলে জানান জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন।


কুমিল্লা টাইমস’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

বিজ্ঞাপন

সকল স্বত্বঃ কুমিল্লা টাইমস কতৃক সংরক্ষিত

Site Customized By NewsTech.Com