বিজ্ঞপ্তি:
"কুমিল্লা টাইমস টিভিতে" আপনার প্রতিষ্ঠান অথবা নির্বাচনী প্রচারনার জন্য এখনি যোগাযোগ করুন : ০১৬২২৩৮৮৫৪০ এই নম্বরে
শিরোনাম:
মধ্যরাতে অগ্নিকান্ডে ভস্মীভূত ১৫ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মুরাদনগরে বিএনপির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মুরাদনগরে সড়কের সংস্কার কাজে অনিয়ম বিলুপ্তির পথে কুমিল্লার তাঁতে তৈরি আসল খাদি দেবীদ্বার ইফতার দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত কুমিল্লায় সিগারেট বাকি না দেওয়ায় দোকানিকে কুপিয়ে হত্যা ইউপি সদস্যের উপর হামলার জের, ব্যবসায়ীর বাড়ীতে ভাংচুর ও লুটপাট মুরাদনগরে বুধবার ও বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ থাকবেনা কনকর্ড অ্যাসোসিয়েশনের নতুন কমিটি সভাপতি রেজাউল, সম্পাদক আলমগীর কুমিল্লায় রাতের আধারে অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মাঝে ইফিতার সামগ্রী বিতরন দক্ষিণ মুরাদনগর কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে বিনামূল্যে চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত মুরাদনগরে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার মুরাদনগর শিশু অপহরণ ও হত্যায় ৩জনের ফাঁসি ১জনের যাবজ্জীবন অগ্নিঝরা মার্চ মুরাদনগরে বসুন্ধরা শুভসংঘের উদ্যোগে সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধন

সাত মাসের শিশুটিও জেলে কাটালো ১৫দিন

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫১০ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কুমিল্লায় ৭ মাসের শিশুকে কোলে নিয়ে আত্মসমর্পন করেছিলেন এক মা। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনে শিশুপুত্রকে কোলে নিয়ে ২দিনের রিমান্ডের মুখোমুখীও হন ওই মা। বুধবার ১৫দিন জেলে খেটে মায়ের জামিনে মুক্তি পেলেন ৭ মাসের ওই শিশু মাহাদী হাসান মাহির।

জানা যায়, দেবরের স্ত্রীর আত্মহত্যা ঘটনায় হত্যার অভিযোগে মামলায় শিশু মাহাদী হাসানের মা শাহনাজ আক্তার আদালতে আত্মসমর্পন করে। পরে বিচারক শিশুপত্রসহ শাহানাজ আক্তারকে কারাগারে প্রেরণ করেন।

জামিনের আবেদনে বুধবার (৪ নভেম্বর) শিশুসহ মাকে আদালতে হাজির করানো হয়। এইদিন সকালে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলামসহ ঢাকা থেকে কয়েকজন আইনজীবী একটি মামলা শুনানির জন্য কুমিল্লা কোর্টে যান। মামলা পরিচালনার সময় কুমিল্লার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের ভিতরে দেখেন একটি শিশু কাঠগড়ার মধ্যে গড়াগড়ি করছে। আবার কখনও কান্না করছে। তখন তাদের নজরে পড়লে তারা শিশুসহ ওই মাকে জামিনের জন্য বিচারকের মুখোমুখী হন। পরে কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আতাব উল্লাহ শিশুসহ মা শাহনাজ আক্তারকে জামিন প্রদান করেন।
জামিনের বিষয়টি নিশ্চিত করে মামলায় আসামী পক্ষের আইনজীবি এড. আক্তার হামিদ খান কবির। তিনি জানান, গত ২০১৮সালের ১ সেপ্টেম্বর কুমিল্লা নগরীর মনোহরপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন গৃহবধূ আয়েশা আক্তার রীমা। এই মৃত্যুর ঘটনায় গৃহবধূ আয়েশার বাবা তার স্বামী নাসির উদ্দিন, ভাসুর মাসুম ও তার স্ত্রী শাহনাজ বেগমকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় গত ১৯ অক্টোবর আদালতে আত্মসমর্পন করেন শাহনাজ বেগম। এসময় তার কোলে ৭ মাসের শিশুসহ আসামীকে কারাগারে পাঠায় আদালত।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি এ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম বলেন, চিকেন পক্সে আক্রান্ত শিশুকে নিয়ে মা শাহানাজ বেগম ১৫ দিন কারা বরণ করেছেন। এর মধ্যে মামলায় শিশুকে কোলে রেখে রিমান্ডের মুখোমুখিও হতে হয়েছে তাদের। আমার তদন্ত কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা এটা অন্যায় করেছে। করোনাকালীন সময়ে তাদের জামিনের ব্যাপারে দায়িত্ব নিয়ে সাহায্য করা উচিত মনে করেছি। বিচার আমাদের কথা শুনে শিশুর মা ও বাবাকে জামিন প্রদান করেছেন।

জামিন শুনানিতে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি এ্যাডভোকেট জুবায়ের হোসেন, কুমিল্লা কোর্টের আইনজীবী এ্যাডভোকেট বদিউল আলম সুজন।


কুমিল্লা টাইমস’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

বিজ্ঞাপন

সকল স্বত্বঃ কুমিল্লা টাইমস কতৃক সংরক্ষিত

Site Customized By NewsTech.Com