বিজ্ঞপ্তি:
"কুমিল্লা টাইমস টিভিতে" আপনার প্রতিষ্ঠান অথবা নির্বাচনী প্রচারনার জন্য এখনি যোগাযোগ করুন : ০১৬২২৩৮৮৫৪০ এই নম্বরে
শিরোনাম:
মুরাদনগরে বসুন্ধরা শুভসংঘের উদ্যোগে সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধন ‘বাবা, আমাদের বাঁচাও বলে চিৎকার করছিল আমার দুই মেয়ে’ বেইলি রোডের অগ্নিকান্ড; খাবার আনতে গিয়ে প্রাণ হারাল মুরাদনগরের পম্পা সারাদেশে সেরা হলো কুমিল্লা জেলা পুলিশ অস্তিত্ব সংকটে তিতাস নদী, রূপ নিয়েছে আবাদি জমিতে কুমিল্লা জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন, কোম্পানিগঞ্জ শাখার কমিটি গঠন বিরল সূর্যগ্রহণ, দিন হবে রাতের মতো অন্ধকার! মুরাদনগরে পরীক্ষায় নকল দিতে গিয়ে ৩জন আটক; ২বছরের সাজা মার্কিন প্রতিনিধি দলের কৃষি কার্যক্রম পরিদর্শন মুরাদনগরে ভাষা শহীদদের স্মরনে প্রভাতফেরি আজ থেকে এক মাস বন্ধ সব কোচিং সেন্টার মুরাদনগরে স্থানীয় সম্পদ আহরণ ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কোর্সের উদ্বোধন কুমিল্লায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫ টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, কুমিল্লার নতুন কমিটি ঘোষনা মুরাদনগরে অবৈধ সীসা কারখানা সিলগালা, দুই লক্ষ টাকা জরিমানা

কুমিল্লায় শিশুকে গলাটিপে হত্যা, বাবা ও সৎ মা আটক।

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ১ জুন, ২০২০
  • ৫১৪ বার পড়া হয়েছে
কুমিল্লায় শিশুকে গলাটিপে হত্যা, বাবা ও সৎ মা আটক।

ডেস্ক রিপোর্টঃ

কুমিল্লার চান্দিনায় আরাফাত হোসাইন নামে আট বছরের এক শিশুকে গলাটিপে হত্যা করেছে সৎ মা। ঘটনা গোপন করতে বাড়ির গোয়াল ঘরে খড়-কুটু দিয়ে ঢেকে রাখার ১০ ঘণ্টা পর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে নিহতের বাবা ও সৎ মাকে আটক করা হয়েছে।

রোববার রাত ১১টায় চান্দিনা উপজেলার তীরচর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত আরাফাত চান্দিনা উপজেলার বাতাঘাসী ইউনিয়নের তীরচর গ্রামের মো: ফরিদ মিয়ার ছেলে। সে তীরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র।

নিহতের মা ফেরদৌসী বেগম জানান, রোববার দুপুর ১২টার পর থেকে আরাফাতকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বাড়ি ও আশপাশের এলাকা খুঁজে কোথাও না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করাও হয়। রাত ৯টার পর এলাকার লোকজন সৎ মার আচরণ সন্দেহজনক দেখে পুরো বাড়িতে তল্লাশি চালায়। পরে গোয়াল ঘরে শিশুর নিথর দেহ পরে থাকতে দেখে পুলিশ খবর দেয়।

আরাফাতের লাশ পাওয়ায় পর সৎ মা সুমী আক্তার পালিয়ে যাওয়ার সময় এলাকার লোকজন তাকে আটক করে।

চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোঃ আবুল ফয়সল জানান, ফরিদ মিয়ার প্রথম স্ত্রীর তিন মেয়ে ও একটি মাত্র ছেলে আরাফাত। আর দ্বিতীয় স্ত্রী সুমী আক্তারের ছোট একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

জিজ্ঞাবাসাবাদে আটক সৎ মা সুমী আক্তার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে। বলেন- প্রথম স্ত্রীর সন্তানকে সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করার জন্যই পরিকল্পিতভাবে শিশু আরাফাতকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে।

ওসি আরো জানান, ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করা পর ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে নিহতের বাবা ফরিদ মিয়া ও সৎ মা সুমী আক্তারকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করা হচ্ছে।


কুমিল্লা টাইমস’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

বিজ্ঞাপন

সকল স্বত্বঃ কুমিল্লা টাইমস কতৃক সংরক্ষিত

Site Customized By NewsTech.Com