বিজ্ঞপ্তি:
"কুমিল্লা টাইমস টিভিতে" আপনার প্রতিষ্ঠান অথবা নির্বাচনী প্রচারনার জন্য এখনি যোগাযোগ করুন : ০১৬২২৩৮৮৫৪০ এই নম্বরে
শিরোনাম:
মুরাদনগরে বসুন্ধরা শুভসংঘের উদ্যোগে সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধন ‘বাবা, আমাদের বাঁচাও বলে চিৎকার করছিল আমার দুই মেয়ে’ বেইলি রোডের অগ্নিকান্ড; খাবার আনতে গিয়ে প্রাণ হারাল মুরাদনগরের পম্পা সারাদেশে সেরা হলো কুমিল্লা জেলা পুলিশ অস্তিত্ব সংকটে তিতাস নদী, রূপ নিয়েছে আবাদি জমিতে কুমিল্লা জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন, কোম্পানিগঞ্জ শাখার কমিটি গঠন বিরল সূর্যগ্রহণ, দিন হবে রাতের মতো অন্ধকার! মুরাদনগরে পরীক্ষায় নকল দিতে গিয়ে ৩জন আটক; ২বছরের সাজা মার্কিন প্রতিনিধি দলের কৃষি কার্যক্রম পরিদর্শন মুরাদনগরে ভাষা শহীদদের স্মরনে প্রভাতফেরি আজ থেকে এক মাস বন্ধ সব কোচিং সেন্টার মুরাদনগরে স্থানীয় সম্পদ আহরণ ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কোর্সের উদ্বোধন কুমিল্লায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫ টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, কুমিল্লার নতুন কমিটি ঘোষনা মুরাদনগরে অবৈধ সীসা কারখানা সিলগালা, দুই লক্ষ টাকা জরিমানা

আগামি প্রজন্মের জন্য মুক্তিযুদ্ধের সকল স্মৃতি সংরক্ষন করতে হবে : এমপি বাহার

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৭১২ বার পড়া হয়েছে
আগামি প্রজন্মের জন্য মুক্তিযুদ্ধের সকল স্মৃতি সংরক্ষন করতে হবে : এমপি বাহার

প্রদীপ দেব, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেছেন আগামি প্রজন্মের জন্য মুক্তিযুদ্ধের সকল স্মৃতি সংরক্ষন করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এ প্রজন্মের সন্তানদের কাছে তুলে ধরতে হবে।

এমপি বাহার বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি বর্বর বাহিনী নির্বিচারে গণহত্যা করেছে, বাংলাদেশের মানুষের উপর অত্যাচার, লোটপাট, ধর্ষন নির্যাতন করেছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলাদেশ আজ মাথা তুলে দাড়িয়েছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে উন্নত বাংলাদেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তিনি স্মৃতিসৌধ নির্মানে উদ্যোগ নেওয়ার জন্য কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও কুমিল্লা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদকে ধন্যবাদ জানান।

পরে মহান মুক্তিযুদ্ধে ২নং সেক্টরের অন্যতম যুদ্ধক্ষেত্র কুমিল্লা সদর উপজেলার কটকবাজারে শহীদ স্মৃতসৌধে শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান এবং উদ্বোধন করেন। ১৯৭১ সালের ৯ মে কুমিল্লা ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকা কটকবাজার এলাকায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর ৩১ পাঞ্জাব ও ৩৯ বেলুচ রেজিমেন্টের সাথে ২ নং সেক্টরের যুদ্ধ সংগঠিত হয়, এ যুদ্ধের নেতৃত্ব দেন ২ নং সেক্টরের ক্যাপ্টেন রেজাউর আহমেদ। এখান থেকেই মুক্তিযোদ্ধারা ভারতে ট্রেনিং যুদ্ধ প্রস্তুতি সহ মুক্তিযুদ্ধের যাবতীয় কর্মকান্ড পরিচালিত হতো। এ যুদ্ধে ৭ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। পাকিস্তানের শতাধীক সেনাবাহিনীর সদস্য নিহত হয়। কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও কুমিল্লা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে এ স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হয়।

উপস্তিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর, কুমিল্লা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজমুল হাসান পাখি, সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শফিউল আহমেদ বাবুল।


কুমিল্লা টাইমস’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

বিজ্ঞাপন

সকল স্বত্বঃ কুমিল্লা টাইমস কতৃক সংরক্ষিত

Site Customized By NewsTech.Com